পিরিয়ডের ব্যথা নিরাময়ে কিছু ঘরোয়া সমাধান

পিরিয়ডের ব্যথা নিরাময়ে কিছু ঘরোয়া সমাধান

পিরিয়ডের ব্যথা নিরাময়ে কিছু ঘরোয়া সমাধান:

নারীদের প্রজনন প্রক্রিয়ার প্রভাবকারী একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া হচ্ছে পিরিয়ড বা মাসিক।প্রত্যেক মেয়েদের জন্য এটি একটি শরীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া । নারী যে সন্তান ধারণে সক্ষম, সেটার প্রমাণই হচ্ছে তার নিয়মিত মাসিক। তবে এই সাধারণ নিয়মেও রয়েছে কিছু সমস্যাদায়ক ব্যাপার, আর তা হলো মাসিকের সময় শারীরিক ব্যথা।সেটা যেমন তলপেটে হতে পারে, তেমনি হতে পায়ে ঊরু,পশ্চাত্দেশ বা কোমরেও। অনেকের প্রচন্ড মাথা ব্যাথাও হয়। মোটকথা মাসিকের সময় ব্যথাটা যেন মাসিকের অবিচ্ছেদ্য অংশ। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যথার এই যন্ত্রণায় পিরিয়ডের সময় তাদের স্বাভাবিক কাজকর্মে বাধা সৃষ্টি হয়। আর মাসিকের ব্যথা কমাতে পেইন কিলার মতো ওষুধ ঘনঘন খাওয়াও বিপজ্জনক।


তাই জেনে নিন মাসিকের কারণে শারীরিক ব্যথা দূর করার কিছু ঘরোয়া উপায়:

১। বিশেষ ভঙ্গিমায় শোয়া:

আপনার শারীরিক ভঙ্গিমার ওপরেও অনেকখানি নির্ভর করে ব্যথার পরিমাণ। তলপেটে ব্যথা খুব বেশি হলে বাম কাত হয়ে হাঁটু ভাঁজ করে শুয়ে থাকুন। ব্যথা কম অনুভূত হবে।
বিশ্রাম নেবার সময় চিত হয়ে শোন এবং পায়ের নিচে কমপক্ষে দুটো বালিশ দিয়ে উঁচু করে দিন। এতেও ব্যথা কম অনুভূত হবে।

২। গরম পানির প্যাক:


পেটে ব্যথার জায়গায় গরম পানির সেঁক দিতে পারেন। হট ব্যাগের মধ্যে গরম পানি নিয়ে পেটের ওপর দিতে পারেন। এটি আপনার ব্যথা অনেকটা কমিয়ে দেবে।
এছাড়াও ইস্ত্রি দিয়ে কাপড় গরম করেও সেঁক দেয়া যায়। এটিও আপনার পেটের ব্যথা কমিয়ে কিছুটা স্বস্তি হবে। তলপেটে হালকা মেসেজ করলে ব্যথা কমে যাবে এ ছাড়াও হালকা ব্যায়াম করা যাতে পারে।

৩। দুধ:

প্রতিদিন সকালের নাস্তায় এক গ্লাস দুধ পান করুন। এটি আপনার শরীরের ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করবে। যদি আপনি দুধ খেতে না পারেন তবে ক্যালসিয়ামের ট্যাবলেট খেতে পারেন।

৪। আদা:

আদা বেশ উপাকারী পিরিয়ডের ব্যথা রোধের জন্য। আদা চা পান করলে এই সময় বেশ ভাল উপকার পাওয়া যায়। এছাড়া কয়েক টুকরো আদা গরম পানিতে সেদ্ধ করে চাইলে
এর সাথে মধু বা চিনি যোগ করে এটি দিনে তিন-চারবার পান করতে পারেন।

৫। পেঁপে:

পিরিয়ডের ব্যথা রোধের জন্য পেঁপে খাওয়া বেশ কার্যকরী। পিরিয়ডের সময় নিয়মিত কাঁচা পেঁপে খান। কাঁচা পেঁপে মাসিকের ব্যথা কমিয়ে দেয়।

৬। ল্যাভেন্ডার অয়েল :

পিরিয়ডের ব্যথার সময় পেটে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মালিশ করুন। ১০- ১৫ মিনিটের মধ্যে এটি আপনার ব্যথা কমিয়ে দেবে অনেকখানি।

৭। অ্যালোভেরা রস:

অ্যালোভেরা রসের সাথে মধু মিশিয়ে একটি জুস তৈরি করে ফেলুন। পিরিয়ডের ব্যথার সময় এটি পান করুন। দিনে কয়েকবার এটি পান করুন। ব্যথা অনেকখানি কমিয়ে দেবে এই পানীয়টি।

৮। ধনে বীজ :

ধনে বীজে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটোরি উপাদান রয়েছে, যা মাসিক ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকে। কয়েকটা ধনে বীজ গরম পানিতে সেদ্ধ করুন। এই পানীয়টি দিনে দুইবার পান করন।
এটি আপনার পিরিয়ডের ব্যথা অনেকটা কমিয়ে দেবে।

৯। কফি:

পিরিয়ডের সময়টায় কফি-জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। কফিতে মূলত ক্যাফেইন থাকে যা রক্তনালী সমূহকে উত্তেজিত করে তোলে। এটি পেটে অস্বস্তিকর অনুভূতি বাড়িয়ে দেয় অনেকখানি।

১০। গাজর:

এক গ্লাস গাজরের রস আপনাকে দীর্ঘক্ষণ পেটে ব্যথা থেকে মুক্তি দেবে। পিরিয়ড চলাকালীন প্রতিদিন এক গ্লাস গাজরের রস পান করার চেষ্টা করুন।

১১| কিছু জিনিস বাদ দিন

যদি অ্যালকোহল গ্রহণের অভ্যাস থাকে তাহলে বাদ দিন। সেই সঙ্গে পরিহার করুন অতিরিক্ত চিনি, লবণ ও ক্যাফেইনযুক্ত খাবার। এতে রক্ত জমাট বেঁধে যে ব্যথা হয়, তা রোধ হবে।

১২। পানি ও পানীয় জাতীয় খাবার খান:


দেহের শুষ্কতারোধে প্রচুর পরিমাণ পানি এবং পানিজাতীয় খাবার খান। কেননা এই সময়টায় শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। এছাড়া এই সময় ভিটামিন এবং মিনারেল-জাতীয় খাবার খাওয়া জরুরী।
প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় মিনারেল ও ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার রাখার চেষ্টা করুন। তবে মনে রাখতে হবে হাইজিন বা স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ার বিষয়টি যেন পরিচ্ছন্নতার মাধ্যমেই হয়।
সঠিকভাবে স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার করে গণ সচেতনতা গড়ে তুলুন।

অনলাইনে ফিমেল হাইজিন কেয়ারের প্রোডাক্ট কিনতে ভিজিট করুন ।

www.goponjinish.com/en/12-female-hygiene-care

Posted on 2018-03-23 0 885

Leave a CommentLeave a Reply

You must be logged in to post a comment.

Blog archives

Blog categories

Latest Comments

No comments

Blog search

Recently Viewed

No products

Menu

Compare 0